নড়াইল প্রতিনিধি খন্দকার সাইফুলঃ নড়াইলের কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানার কলাবাড়িয়া ইউনিয়নের কলাবাড়িয়া গ্রামের
আপন মৃত ভাইয়ের সম্পত্তি দখলের জন্য সমস্ত ভিটাজমি, আঙ্গিনা ও বসতভিটা থেকে প্রায় ৪’শ নানা ধরনের গাছ কেটে নিয়েছেন বড়ভাই সাবেক ওসি স ম আসাব হোসেন। ভাইয়ের বড় পুত্র তানভীর হোসেন প্রবাসে,মেয়েরা ঢাকায় থাকার সুযোগে গাছ কেটে তা নিজ ইচ্ছামতো বিক্রি করছেন। প্রায় ১০ লক্ষ টাকার গাছ কাটার অভিযোগ করেছেন পুত্র
তানভীর হোসেন। ভাইয়ের স্ত্রী হাসিনা কবির,ভাতিজার শ্বশুর এমনকি স্থানীয় কোন লোকেরাই ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারেন না,ওসির ভয়ে থানায়ও কোন অভিযোগ করার সামর্থ নাই
পরিবারের।
সরেজমিন দেখা গেছে,দুই ভাইয়ের পৈত্রিক ভিটায় প্রায় দুই একর জমির চারিদিকে কেবলই
কাটা গাছ পড়ে আছে,রেইনট্রি গাছের একটি বাগান তছনছ অবস্থায় কিছু গাছ পড়ে আছে,৩/৪ বছরের ছোট খাট গাছ কেটে সাফ করা হয়েছে। স্থানীয় ব্যাপারীরা বেশিরভাগ
গাছই নিয়ে গেছে। কলাবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চেয়ারম্যান এর বাড়ির কাছে রাস্তার
পাশে সারি সারি গাছ পড়ে রয়েছে। এসময় সাংবাদিকেরা ছবি তুলছে দেখে তেড়ে আসেন
বড়ভাই সাবেক ওসি পরিচয়ধারী আসাব হোসেন। সাংবাদিকদের সাথে হুমকীর সুরে কথা শুরু করেন। এসময় আশে পাশের লোকজন আসলেই তাদের গালি দিয়ে ধমক লাগান। একে একে স্থানীয়রা চলে যায়। ভাইয়ের ছেলের শ্বশুর সৌখিন মুন্সিকে সামনে পেলে পাড়ায়ে মেরে ফেলবেন এসব বলে সাংবাদিকদের ভয় দিতে থাকেন।
সৌখিন মুন্সি বলেন,আমরা বাধা দিতে গেলে ওসি আসাব হোসেন মারতে চলতে আসে,আমার জামাই হয়তো এই ঘটনার জন্য মেয়েকে ছেড়েও দিকে পারে। আপনারা আমার জামাই এই সম্পত্তি টুকু রক্ষা করে দিন।
মৃত কবির হোসেনের বড় ছেলে তানভীর ফোনে জানান, আমার বাবার লাগানো ১০ লক্ষ টাকার
গাছ কেটে নিয়েছে আমার কাকা। আমার কাকা বাপচাচারা দুই ভাই আমার কাকা ছিল
ওসি তিনি যখন চাকুরীতে ছিলেন তখন আমার বাবা এসব গাছ লাগিয়ে ছিল বাড়িতে।
আমাব বাবা গত বছরের এইটাইমে মারা যায় । মারা যাওয়ার আগে আমার বাবা আমাকে
বাবার ভাগের সম্পওি টুকু লিখে দিয়ে যায় ।
গাছ কেটে দখলকারী সাবেক ওসি স ম আসাব হোসেন বলেন,এই বাড়ির জমি নিয়ে মামলা
হয়েছিলো তা তো তারা তুলে নিয়েছে,এখন সাংবাদিক কি করবে। আপনাদের কে পাঠিয়েছে? আমার ভাই বাড়ির অনেক গাছ কেটেছে,আমি যা কেটেছি তা ঠিক করেছি,দরকার হলে আমি আবার গাছ লাগাব।
কলাবাড়িয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান জানান,মাহামুদুল হাসান কয়েস জানান, সাবেক ওসি স ম আসাব হোসেন ছোট ভাই কবীর হোসেন কে নিজ ক্ষমতা প্রয়োগ করে মিথ্যা অস্ত্র মামলায় ফাসিয়েছিলেন এটা আমি জানি। মূলতঃ ছোট ভাইয়ের সম্পত্তি দখলের জন্য তার ভিটা থেকে গাছ কেটে নিয়েছে। আসাব সাহেব সবসময়ই নিজের ক্ষমতা প্রয়োগ করেন।
নিজের ভিটায় স্বামীর লাগানো ৪’শ গাছ জোরপূর্বক কেটে নেবার ব্যাপারে ভাসুর সাবেক ওসি আসাব হোসেন এর বিরুদ্ধে ৩১ মে নড়াগাতি থানায় এজাহার দায়ের করেন ভাইয়ের স্ত্রী হাসিনা কবীর। যদিও এই অভিযোগ মামলা হিসেবে গ্রহন করেনি নড়াগাতি থানা পুলিশ।
অভিযোগ গ্রহন না করা বিষয়ে নড়াগাতি থানার ওসি রোকসানা খানম জানান,কাটা গাছগুলো আমরা বিক্রি না করার জন্য বলেছি। সেগুলো পুলিশের নজরে রয়েছে। এছাড়া জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ বিধায় সমঝোতার কথা বলা হয়েছে। সাবেক পুলিশ বলে মামলা নেননি এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন,আইন তো সবার জন্য সমান,পুলিশের জন্য আলাদা কোনআইন নাই।

13 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here